ভ্রমণের সেরা ২৫টি টিপস - GoArif

ভ্রমণের সেরা ২৫টি টিপস

ভ্রমণের সেরা ২৫টি টিপস যা একজন ভ্রমণকারীর ভ্রমণের পূর্বে অবশ্যই জানা উচিত। আজকে আমি আপনার সাথে ভ্রমনের এই ২৫টি টিপস নিয়ে আলোচনা করব।

তো চলুন শুরু করা যাক…

ভ্রমণ করতে কার না ভালো লাগে। সবারই ভালো লাগে তাই না? সময় পেলেই আমরা একদল মানুষ ছুটে যাই প্রকৃতির কাছে। প্রকৃতিও আমাদের কে সাআনন্দে গ্রহন করে নেয়।

ভ্রমণ সব সময় আমাদের নতুন কিছু শিখায়। নতুন ভাবে ভাবতে শিখায়। নতুন ভাবে চলতে শিখায়।

তবে, মাঝে মাঝে আমাদের ছোট খাটো কিছু ভুলের কারনে আনন্দের ভ্রমণ নিরআনন্দের রুপ নেয়।

সেই ছোট ছোট ভুল গুলো নিয়ে এবং আমার ১০ বছর এর ভ্রমণ অভিজ্ঞতা নিয়ে আজকের এই পোস্ট ভ্রমনের সেরা ২৫টি টিপস।

আরও পড়ুনঃ জাতীয় স্মৃতিসৌধ ভ্রমণ সাভার, ঢাকা

মনস্থির করে সময় নিয়ে পরিকল্পনা করুন

প্রায়শই দেখা যায় তাড়াহুড়া করে ভ্রমণ এর পরিকল্পনা করা হয়। এটা ঠিক নয়। হাতে সময় নিয়ে মনস্থির করে পরিকল্পনা করুন।

মনে রাখবেন, তাড়াহুড়া করতে যেয়ে যেন, ভুল পরিকল্পনা না হয়ে যায়। বৃষ্টির সময় পাহাড়ে ভ্রমণ করা ঠিক নয়। এটা মাথায় রাখতে হবে।

ভ্রমণের লিস্ট তৈরি করুন

ভ্রমণের কমপক্ষে ৭ দিন পূর্বেই আপনার ভ্রমণের জন্য প্রয়োজনীয় লিস্ট তৈরি করুন। সম্ভব হলে তারও আগে থেকে লিস্ট তৈরি করা শুরু করুন।

ভ্রমণের সাথে কি কি নিবেন। সিজন অনুযায়ী শীতের পোশাক অথবা গ্রীষ্মের পোশাক কোন গুলো নিবেন আগে থেকে ঠিক করে রাখুন।

এছাড়া অন্যান্য আনুসাঙ্গিক জিনিস গুলোর একটা লিস্ট তৈরি করে ফেলতে পারেন। এ কাজে আপনার মোবাইল এর নোটপ্যাড এপ্স এর সহায়তা নিতে পারেন।

নাম্বার দিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিস গুলোর একটা লিস্ট বানিয়ে ফেলুন। যেহেতু মোবাইল সব সময় আপনার সাথে থাকে, তাই আপনার প্রয়োজনীয় জিনিস এর কথা মনে আসার সাথে সাথে মোবাইলে লিখে ফেলতে পারবেন।

স্থানীয় ভাষার সাধারণ বাক্যাংশ গুলো জেনে রাখুন

বাংলাদেশে ভ্রমণের জন্য বাংলাদেশীদের এই বিষটা খুব একটা দরকার হয় না। তবুও পাহাড়ি অঞ্চল যেমনঃ চট্রগ্রাম, সিলেট এ সব এলাকায় গেলে তাদের স্থানিয় ভাষা বুজা কিন্তু খুব কঠিন।

তাই তাদের সাথে কথা বলার জন্য প্রয়োজনীয় ছোট খাটো শব্দ গুলো জেনে রাখলে আপনার অনেক সুবিদা হবে।

এছাড়া বিদেশ ভ্রমনে গেলে তাদের ভাষা না বুজলেও আপনি যদি ছোট খাটো শব্দ গুলো জানেন যেমনঃ Hi, Hello, Please, Thank you and I’m sorry এগুলো দিয়ে অনেকটা চালিয়ে নিতে পারবেন।

একটি অতিরিক্ত ক্যামেরা ব্যাটারি নিতে ভুলবেন না (বা দুটি)

ভ্রমণের সময় আমারা ভ্রমণের মুহূর্ত গুলো ছবি বা ভিডিও আকারে সংরক্ষণ করতে পছন্দ করি।

তাই ভ্রমণের সময় আপনার ক্যামেরার জন্য অবশ্যই সাথে করে ১ বা ২ টি অতিরিক্ত ব্যাটারি নিতে ভুলবেন না।

একটা ভুলের জন্য আপনার চমৎকার সেই সময়টা ফ্রেমবন্দি করতে পারবেন না। তখন আফসোস করবেন শুধু।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী জাদুঘর ভ্রমণ, ঢাকা

ভ্রমণ পোশাক এর প্রতি খেয়াল করুন

ভ্রমণের সময় সিজন অনুযায়ী পোশাক নিতে ভুলবেন না কিন্তু। যে কথা একটু আগেই আমি বলেছি।

শীতের সময় ভারি কাপড় সাথে মোজা, চাদর আর, গরম এর সময় হালকা পাতলা কাপড় নিবেন।

সর্বদা ভ্রমণ বীমা কিনুন

এটা বাংলাদেশে কতটা জনপ্রিয় তা বলতে পারছি না। তবে এটা সকল ট্রাভেলার এর জন্য জরুরি।

সর্বদা যে কোন দেশে ভ্রমনে গেলে ভ্রমণ বীমা কিনার চেষ্টা করবেন। এটা আপনার মেডিক্যাল এর জন্য অনেক সহায়ক।

গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রের ফটোকপি করে রাখুন

ভ্রমণের সময় আমাদের অনেক গুরুত্ব পূর্ণ কাগজপত্র সাথে নিতে হয়। যেমনঃ পাসপোর্ট, ভিসা, ভোটার আইডি ইত্যাদি।

এগুলোর ফটোকপি করে রাখুন। অনেক সময় ভ্রমনে থাকা কালীন আমরা বেখেয়ালি হয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রগুলো হারিয়ে ফেলতে পারি।

তাই, আপনার গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রের ফটোকপি করে রাখুন।

অতিরিক্ত আন্ডারওয়্যার নিন

ভ্রমণের সময় সাথে করে অতিরিক্ত আন্ডারওয়্যার নিন। কারন, ভ্রমনে আমরা সব সময় ঘুরার উপরে থাকি।

সারাদিন ঘুরার ফলে আন্ডারওয়্যার ঘেমে দুর্গন্ধ বের হয়। পরের দিন যদি আবার আপনি এটা পড়ে বের হন তাহলে সেখান থেকে ব্যাকটেরিয়া হয়ে আপনার চুলকনি সহ অনেক রোগের জন্ম হতে পারে।

তাই ভ্রমনে অতিরিক্ত আন্ডারওয়্যার নিন।

আরও পড়ুনঃ মতলব উত্তর উপজেলা পরিচিতি

ব্যাকপ্যাক গুছিয়ে নিন

ভ্রমণের ১/২ দিন আগেই আপনার ব্যাকপ্যাক গুছিয়ে নিন। আপনি ভ্রমনে যা যা নিবেন সেটার যে লিস্ট করেছেন সে অনুযায়ী ব্যাকপ্যাক গুছিয়ে ফেলুন।

১/২ দিন হাতে রেখে ব্যাকপ্যাক গুছালে ভুল ক্রমে যেটা আপনি নিতে ভুলে গেছেন সেটা মনে পড়ে যাবে।

ইলেকট্রনিক্স, ঔষধ, টুথব্রাশ, এবং আপনার
ব্যাকপ্যাক এ অতিরিক্ত জুতা রাখুন

ভ্রমণের সময় কিছু গুরুত্বপূর্ণ আইটেম সবসময় আপনাকে বহন করতে হবে। আপনি যদি কোন সৈকতে ছুটিতে যান তাহলে কিন্তু আপনাকে সাথে করে সাঁতারের পোষাক নিতে হবে।

তেমনি ভাবে সমুদ্রের বিচে হাটা চলার জন্য আপনি সাথে করে অতিরিক্ত হালকা গঠনের জুতা সাথে নিতে পারেন।

পাবলিক পরিবহনে চলার জন্য ভাড়া জেনে নিতে পারেন

ভ্রমণের সময় এক জায়গা থেকে আরেক জায়গা যাওয়ার জন্য অনেক সময় আমাদের পাবলিক পরিবহন ব্যাবহার করতে হয়।

তাই পাবলিক পরিবহনে উঠার আগে পাবলিক পরিবহনে চলার জন্য ভাড়া জেনে নিতে পারেন।

প্লেনে হাইড্রেটেড থাকুন

একদেশ থেকে আরেক দেশে ভ্রমণের জন্য আমাদের প্লেনে করে যেতে হয়। প্লেনে লং জার্নির সময় যখন প্লেন অনেক উপরে থাকে যেমনঃ ৩০,০০০ ফিট ।

তখন প্লেনে হাইড্রেটেড থাকার চেষ্টা করুন।

হোটেল ঠিকানা এবং হোটেল এর ফোন নাম্বার আপনার ফোনে লিখে রাখুন

ভ্রমণের সময় এরকম হয় যে, অনেক সময় আমি হোটেল এর নাম ভুলে যাই। তাই আমি হোটেল এর ঠিকানা এবং মোবাইল নাম্বার আমার মোবাইলে লিখে রাখি।

আমার মত এরকম আছেন কেউ?

স্থানীয়দের জিজ্ঞাসা করুন

আমি প্রায়শই খাবারের জন্য কোন হোটেল ভালো বা স্থানীয় বিখ্যাত কি খাবার রয়েছে সেটা জানার জন্য স্থানীয়দের জিজ্ঞেস করি।

আপনারও এটা করে দেখতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ কক্সবাজার ভ্রমণ

ফ্রি পাবলিক ওয়াইফাই থেকে সাবধান

ভ্রমণের সময় বা অন্য যে কোন সময় ফ্রি পাবলিক ওয়াইফাই ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

বিমানবন্দর গুলোতে অনেক সময় ফ্রি পাবলিক ওয়াইফাই পাওয়া যায়। আমি এগুলো থেকে সাবধান থাকার ব্যাপারে পরামর্শ দিব।

তবে, আপনার হোটেল বা অন্য কোথাও যদি ওয়াইফাইয়ে পাসওয়ার্ড দেয়া থাকে, তাহলে আপনি সেটা ব্যাবহার করতে পারেন।

ভ্রমণ এর আগে আপনার ব্যাংক এবং ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি কে সতর্ক করে রাখুন

আপনি যদি বিদেশে থাকাকালীন আপনার ক্রেডিট কার্ড কোম্পানী বা ব্যাঙ্ককে আপনার কার্ডে একটি হোল্ড রাখতে না চান তবে এটি একটি দুর্দান্ত অভ্যাস।

সব সময় সতর্ক থাকা ভালো।

ভ্রমণের সময় সাথে বই রাখুন

ভ্রমণের সময় পড়ার জন্য সাথে আপনার পছন্দের বই রাখতে পারেন। অনেক সময় লং জার্নি করতে হয়। তখন আপনি বই পড়ে সময়টা কে ভালো করে উপভোগ করতে পারেন।

মন খোলা রাখুন

ভ্রমণের সময় মন খোলা রাখুন। অন্যান্য কাস্টমস কে বিচার করবেন না। মনে রাখবেন আপনি একজন পরিদর্শক। শ্রদ্ধাশীল হওয়া শিখুন।

ভ্রমণ এর সময় নির্ধারিত করে রাখবেন না

সময় নির্ধারণ করে ভ্রমণ করবেন না। বলা যায় না, অনির্ধারিত সময় গুলোও অনেক সময় নির্ধারিত সময় এর চেয়ে বেশি আনন্দময় হয়।

তাই সময় নির্ধারিণ এর ক্ষেত্রে এই বিষয়টা খেয়াল রাখুন।

বাড়িতে আপনার কাউকে জানিয়ে রাখুন

ভ্রমণ এর সময় বাড়িতে আপনার কাউকে জানিয়ে রাখুন। একাকী ভ্রমণ করার সময় এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বলাতো যায় না, কখন দুর্ঘটনা ঘটে যায়।

আপনার ব্যক্তিগত আইটেম আলাদা করুন

একাকী ভ্রমণে গেলে ভিন্ন কথা। তবে, কয়কজন একসাথে ভ্রমণে গেলে আপনার ব্যক্তিগত আইটেম আলাদা করুন।

অন্যকে জানান আপনার পছন্দের খাবার ও অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে।

বাজেটের বাহিরে আলাদা ব্যাকআপ বাজেট রাখুন

ভ্রমণের জন্য এই বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভ্রমণে অনেক সময় বেখেয়ালি থাকার কারনে ব্যাগ হারিয়ে ফেলি। আবার অনেক সময় চুরি বা ছিনতাই হয়ে যায়।

তাই আপনার ক্রেডিটকার্ড এবং অতিরিক্ত টাকা আপনার গোপন জায়গায় রেখে দিন।

প্রয়োজনের সময় এটা খুব কাজে দিবে।

যে কোন সমস্যায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা নিন।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশের সেরা ট্রাভেল ব্লগ সাইট এর লিস্ট

প্রয়োজনীয় ঔষধ সাথে রাখুন

ভ্রমণের সময় আপনার প্রয়োজনীয় ঔষধ গুলো সাথে রাখুন। কারন, ভ্রমণে সব জায়গায় সব ঔষধ পাওয়া নাও যেতে পারে।

প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য কিছু ঔষধ সাথে রাখতে পারেন।

অসুস্থ অবস্থায় ভ্রমণ না

অসুস্থ অবস্থায় ভ্রমণ করা থেকে বিরত থাকুন। মনে রাখবেন, ভ্রমণ আনন্দে জায়গা। তেমনি, ভ্রমণের জন্য শারীরিক এবং মানসিক শক্তির প্রয়োজন।

অসুস্থতা নিয়ে ভ্রমণে গিয়ে অসুস্থতা আরও বারিয়ে দিবেন না।

প্রয়োজনীয় নাম্বার গুলো কাগজে লিখে রাখুন

ভ্রমণে গেলে মোবাইল থাকা সত্তেও আপনার প্রয়োজনীয় নাম্বার যেমনঃ বাসার নাম্বার, হাজবেন্ড, ওয়াইফ, বন্ধুর নাম্বার গুলো একটা কাগজে লিখে সাথে রাখুন।

বলাতো যায় না, আপনার মোবাইল টি যদি হারিয়ে যায় বা ছিনতাই হয়ে যায় তাহলে যাতে কাছের মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

তাই অবশ্যই প্রয়োজনীয় নাম্বার গুলো কাগজে লিখে রাখুন।


আমার ফেসবুকঃ GoArif | আমার টুইটারঃ GoArif

GoArif.com ওয়েবসাইটের কোথাও কোন ভুল বা অসংগতি আপনার দৃষ্টিগোচর হলে তা অনুগ্রহ করে আমাকে অবহিত করুন, যেন আমি দ্রুত সংশোধন করতে পারি।
আরিফ হোসেন

আমি একজন ভ্রমণ পিপাসু। ভ্রমণ করতে আমার খুবই ভালো লাগে। তাইতো সময় পেলে ভ্রমণে ছুটে যাই। কোন ভ্রমণই আমার শেষ হয়ে শেষ হয় না। বারংবার আমার সেই স্থানে ছুটে যেতে ইচ্ছে করে। কারন, আমি যে প্রকৃতি ভালবাসি।

সব পোস্ট দেখুন

মন্তব্য

avatar
  সাবস্ক্রাইব  
নোটিফিকেশন পান