• সার্চ
  • সার্চ
এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রগ্রাম ভ্রমণ

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতার জন্য চট্রগ্রাম ভ্রমণ করেছি। কেনো চট্রগ্রাম ভ্রমণে গিয়েছি এবং এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতা নিয়ে আজকের লেখা।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০

কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ইংরেজিতেঃ Skills for Employability ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তিক আয়োজিত এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতা হয়ে গেল।

এই প্রতিযোগিতা নিয়ে ইতিমধ্যে আমি www.goArif.info তে একটি পোস্ট করেছি। পোস্ট এর টাইটেল ছিলঃ “স্কিল কম্পিটিশন এ আমার নাম!”

যদি আপনি পোস্টি না পড়ে থাকেন তাহলে, আগে GoArif Info তে গিয়ে পোস্টি পড়ে আসুন।

তাহলে এই লেখাটি বুজতে আপনার সুবিধা হবে।

ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রতি বছর এই প্রতিজোগিতার আয়োজন করে থাকে।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ এর এই প্রতিযোগিতা ছিল বিভাগীয় পলিটেকনিক গুলোর সাথে।

প্রতিযোগিতা হয়েছে চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিউট এ। আর প্রতিযোগিতার তারিখ ছিল ৩০ অক্টোবর ২০১০।

আরও পড়ুনঃ জাতীয় স্মৃতিসৌধ ভ্রমণ সাভার, ঢাকা

চট্রোগ্রাম ভ্রমণ

সিসিএন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে আমাদের ৫ জন এর টীম যাব চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটে, বিভাগীয় প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে।

আমাদের এই ৫ জন টীম কে গাইড করার জন্য সাথে ছিলেন সিসিএন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণের প্রধান সম্মানিত “খাদেমুন” স্যার।

চট্রগ্রাম ভ্রমণ প্রস্তুতি

ভ্রমণের দিন আমরা সবাই সকালেই পলিটেকনিক এ উপস্থিত হলাম। সবাই যার যার মত করে প্রস্তুত হয়ে এসেছেন।

২০১০ এর এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড প্রতিযোগিতায় ৫জন এর টীম এ ছিলেনঃ প্রদীপ কর্মকার, আবুল হাসনাত, পলাশ, আরিফ হোসেন এবং সাব্রিনা আক্তার।

ভ্রমণের দিন

আমরা এই প্রতিযোগিতায় যে প্রজেক্টি নিয়ে যাচ্ছি, সেটার বাকি কাজগুলো সম্পুর্ন করার জন্য কাজ শুরু করে দিলাম।

খাদেমুন স্যার কাগজপত্র রেডি করছিলেন।

সবকিছু শেষ করতে করতে আমাদের প্রায় দুপুর হয়ে এলো। স্যার এসে বললেন, সবাইকে দুপুর এর খাবার খেয়ে নিতে।

বিকেলে সবার সামনে আমাদের এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতার প্রস্তুতি নিয়ে ব্রিফ দিয়ে চট্রগ্রাম এর উদ্দেশ্যে রওনা দিবেন।

চট্রগ্রাম এর উদ্দেশ্যে রওনা

বিকেলের সবকিছু শেষ করতে করতে সন্ধ্যার প্রায় কাছা কাছি হয়ে এলো। এদিকে আমাদের নেয়ার জন্য গাড়ী রেডি।

আমরা সবার কাছ থেকে দোয়া চেয়ে বিদায় নিলাম।

প্রথমে আমাদের কে প্রাইভেটকার এ করে ঢাকা চট্রগ্রাম হাইওয়েতে যেতে হবে। সেখান থেকে বাসে করে চট্রগ্রাম।

বাসে করে চট্রগ্রাম যাচ্ছি… লম্বা জার্নি…।

ও, আমাদের টীম এর সাব্রিনা আমাদের সাথে যাচ্ছে না! ও আগামীকাল ১০ অক্টবর প্রিন্সিপাল (তারিকুল ইসলাম) স্যার এবং মেডাম এর সাথে করে যাবেন।

বাস শোঁ শোঁ করে চলছে, বাতাসের গতিতে।

চারদিকে ঘুটঘুটে অন্ধকার। হঠাৎ বাস থামার ধাক্কায় আমার ঘুম ভাংলো।

আমরা অলংকার এসে গেছি। অলংকার মোড় চট্রগ্রাম। ঘড়িতে তাকিয়ে দেখি, রাত প্রায় ১টা।

চট্রগ্রামে রাত্রিযাপন

বাস থেকে নেমে প্রথমে আমরা নাস্তা করে নিলাম। নাস্তা শেষে চা খেয়ে আমরা হোটেল এর উদ্দেশ্যে পা বাড়ালাম।

ভালো মানের একটা হোটেল দেখে আমরা হোটেল এ উঠে গেলাম।

চট্রগ্রামে আমি এই প্রথম এসেছি।

রাত্রে যদিও ভালো করে শহরটা পরিষ্কার বুজা যাচ্ছিল না, তারপরও খুব সুন্দর লাগছিল আমার কাছে।

হোটেলে উঠে আমার কিছুক্ষন বিশ্রাম নিলাম। এরপর স্যার তার রুমে আমাদের ডাকলেন।

আমরা সবাই গেলাম। শারীরিক ভাবে খুব ক্লান্ত লাগছিল। সারাদিন অনেক পরিশ্রম হয়েছে। তারপর আবার লং জার্নি।

স্যার পরেরদিন আমারা কখন বের হব, কিভাবে চট্রগ্রাম পলিটেকনিক যাব, ড্রেস কোড কি টাইপ হবে, আইডি কার্ড সাথে নিতে হবে, ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কিছুক্ষন কথা বললেন।

আমারা যে যার রুমে গিয়ে ঘুমিয়ে পরলাম।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশ বিমান বাহিনী জাদুঘর ভ্রমণ, ঢাকা

চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউট

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif

সকালে ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে নাস্তার জন্য হোটেল থেকে বের হলাম।

নাস্তা শেষে হোটেলে এসে চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিলাম।

ব্যাকপ্যাক ঘুছিয়ে রওনা দিলাম। আজ যে আমাদের বিভাগীয় এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতা।

ব্যাপারটা মাথায় নিতেই নিজের ভিতরে উত্তেজনা কাজ করছিল।

আমরা সিএনজি করে পলিটেকনিক চলে আসলাম। ঘড়িতে সকাল ৯ঃ৪০ মিনিট। আমাদের আগে ইতিমধ্যে চট্রগ্রাম বিভাগ এর অন্যান্য পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউট এর শিক্ষার্থীরা চলে এসেছেন।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
বাদিক থেকেঃ আবুল হাসনাত, প্রদীপ কর্মকার, সাব্রিনা আক্তার, আরিফ হোসেন এবং পলাশ ।

সকাল ১০টার সময় আমরা এক এক করে সবাই চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটে প্রবেশ করলাম।

আরও পড়ুনঃ সুন্দরবন এবং বাগের হাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ ট্যুর

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif

যথা সময়ে এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতার সংশ্লিষ্ট স্যার মেডাম এবং আয়োজকবৃন্দগন চলে আসলেন।

আমাদের বিজয়

সকাল ১০ থেকে শুরু করে দুপুর ১ টা পর্যন্ত এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ নিয়ে নানা ব্রিফিং দেয়া হল। মূল প্রতিযোগিতা শুরু হবে বিকেলের দিকে।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif

এদিকে আমাদের টীম এর সাব্রিনা ও চলে এসেছে।

দুপুরে খাবার শেষে আমাদের মূল প্রতিযোগিতা শুরু হল। এক এক টীম এক এক রকমের প্রজেক্ট নিয়ে এসেছে।

যেমন আমরা নিয়ে গিয়েছিলামঃ পেন্সিল এর খোসা, চুইঙ্গাম এবং কোমলপানীয়র ফেলে দেয়া পাইপ দিয়ে কিভাবে খুব চমৎকার শোপিস বানানো যায়।

আরও পড়ুনঃ চিড়িয়াখানা ভ্রমণ – মিরপুর, ঢাকা

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
আমাদের প্রজেক্ট এর ডেমো।

শুরু প্রজেক্ট বানালেই হবে না! ৩টি ক্যাটাগরিতে এর উপকারের বর্ণনা তুলে ধরতে হবে।

আমাদের প্রজেক্ট প্রেজেন্টেশন এর সিরিয়াল আসল। প্রেজেন্টেশন দিতে গেলেন প্রদীপ ভাই এবং হাসনাত ভাই।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
প্রেজেন্টেশন দিচ্ছেন প্রদীপ ভাই এবং হাসনাত ভাই।

ফলাফল ঘোষনা

প্রায় সন্ধার দিকে বিচারকগণ যাচাই বাছাই করে প্রতিযোগিতার কাঙ্ক্ষিত সেই ফলাফল ঘোষণা করলেন।

১ম স্থান – চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউট

২য় স্থান – সিসিএন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

এই প্রথমবার সিসিএন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট বিভাগীয় ভাবে প্রতিযোগিতায় ২য় স্থান অর্জন করায় আমরা এবং আমাদের শিক্ষকগন খুবই খুশি হন।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif

ফলাফল ঘোষণা শেষে আমাদের জানিয়ে দেয়া হল, দেশ ভিত্তিক ২য় প্রতিযোগিতা হবে ব্রিটিশ কাউন্সিল তথা ঢাকা শেরাটন হোটেলে ( বর্তমান নাম – রূপসী বাংলা হোটেল ) ।

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ী এবং রানার আপদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। সবশেষে ফটোসেসন।

আরও পড়ুনঃ মতলব উত্তর উপজেলা পরিচিতি

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
খাদেমুন স্যার আমাদের প্রজেক্ট টি অনুষ্ঠান পরিচালকদের উপহার হিসেবে দেন।

ইতিমধ্যে আমাদের প্রিন্সিপাল স্যার এবং মেডাম চলে এসেছেন চট্রগ্রাম পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটটে।

এন্টারপ্রাইজ চ্যালেঞ্জ অ্যাওয়ার্ড ২০১০ প্রতিযোগিতায় চট্রোগ্রাম ভ্রমণ - GoArif
তারিকুল ইসলাম স্যার এবং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান পরিচালকগন।

চট্রগ্রাম কে বিদায়

সবকিছু শেষ করতে আমাদের প্রায় রাত ৮ঃ২০ মিনিট এর মত বেজে যায়। আমরা সবার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে বাসে করে কুমিল্লা সিসিএন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর উদ্দেশ্যে রওনা দেই।

বাসের জানালার পাশে আমার সিট পরেছে। জানালার ঠাণ্ডা বাতাসে আমার ঘুম চলে আসে। কারন, আমি যে খুব ক্লান্ত।


আমার ফেসবুক পেইজঃ GoArif

GoArif.com ওয়েবসাইটের কোথাও কোন ভুল বা অসংগতি আপনার দৃষ্টিগোচর হলে তা অনুগ্রহ করে আমাকে অবহিত করুন, যেন আমি দ্রুত সংশোধন করতে পারি।
আরিফ হোসেন

আমি একজন ভ্রমণ পিপাসু। ভ্রমণ করতে আমার খুবই ভালো লাগে। তাইতো সময় পেলে ভ্রমণে ছুটে যাই। কোন ভ্রমণই আমার শেষ হয়ে শেষ হয় না। বারংবার আমার সেই স্থানে ছুটে যেতে ইচ্ছে করে। কারন, আমি যে প্রকৃতি ভালবাসি।

সব পোস্ট দেখুন

মন্তব্য করুণ