• সার্চ
  • সার্চ
ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস - GoArif

ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস

আপনার ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস নিয়ে আজকের পোস্ট। আমরা সর্বদা ভ্রমণ করতে ভালবাসি।

কিন্তু ভ্রমণে নিরাপত্তার কথা ভেবেছেন কি কখন?

আপনি যদি একজন ভ্রমণ কারি অথবা ট্রাভেলার হয়ে থাকেন, তাহলে ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস আপনার জন্যই। এই টিপস গুলো অবশ্যই আপনার জানা উচিত এবং মানা উচিত।

চলুন শুরু করা যাক…

ভ্রমণের সেরা ২৫টি টিপস পড়েছেন কি?

ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস - GoArif
ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস

ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস


কারো সাথে যোগাযোগ রাখুন

ভ্রমণে কারো সাথে যোগাযোগ রাখাটা খুবই জরুরি। হতে পারে সে আপনার বাবা-মা, ফ্রেন্ড, আত্মীয়, পরিবারের কেউ, আপনার স্ত্রী বা স্বামী।

যতটা সম্ভব এদের কারো একজনের সাথে যোগাযোগ রাখুন। বিপদ তো আর বলে কয়ে আসে না।

ভ্রমণ স্থান সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা রাখুন

আপনি যেখানে ভ্রমণে যেতে চাচ্ছেন, সে স্থান বা এলাকা সম্পর্কে সঠিক ধারনা রাখুন। সে এলাকা বা দেশের আইনকানুন সম্পর্কে জানুন।

কোথায় ভ্রমণে গেলে বেশী রাতে বাহিরে থাকা যাবে, কোথায় থাকা যাবে না এ সম্পর্কে আগে থেকেই তথ্য নিয়ে রাখুন।

সম্ভব হলে সে এলাকা বা দেশের কোন একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে যোগাযোগ রাখুন। এতে আপনার অনেক উপকার হবে।

জরুরি নাম্বার জেনে রাখুন

আপনি যে দেশে বা যে এলাকায় যেতে চাচ্ছেন, সেখানকার জরুরি নাম্বার টি মোবাইল অথবা কোথাও সংরক্ষণ করে রাখুন।

যেমন বাংলাদেশের জরুরি নাম্বারঃ ৯৯৯ । তেমনি আমেরিকার হচ্ছেঃ ৯১১ । এই নাম্বারগুলো টোল ফ্রি (মানে যে কোন নাম্বার থেকে কল দিয়ে আপনি ফ্রি কথা বলতে পারবেন)।

অন্যান্য দেশের নাম্বার গুলো আপনি গুগল করলেই পেয়ে যাবেন।

ভ্রমণে এলকোহল পরিহার করুন

আপনার যদি মদ বা এলকোহল অথবা গাজা, ফেন্সিডিল, ইয়াবা ইত্যাদির প্রতি নেশা থেকেও থাকেন, ভ্রমণে এগুলো সেবন/পান করা পরিহার করুন।

আবার অনেকে ভাবেন, ভ্রমণে এসেছি একটু মজা মাস্তি না করলে হয়! এটা আপনার ভুল ধারনা। ছুরি দিয়ে হাত কেটে কেউ কখন মজা পায় না।

আপনি তো আর পাগল নন, তাই ভ্রমণে এগুলো পরিহার করুন।

এতে আপনার অনেক ক্ষতি হতে পারে। পুলিশের কাছে ধরা পড়ে জেলে যেতে হতে পারে। তখন জেলে বসে ভ্রমণ করা লাগবে। এছাড়া আরও অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ বাংলাদেশের সেরা ট্রাভেল ব্লগ সাইট এর লিস্ট

স্থানীয় পোশাক পড়ার চেষ্টা করুন

ভ্রমণে স্থানীয় পোশাক পড়ার চেষ্টা করুন। আপনি যে পোশাকটি পড়ছেন সেটি সে দেশের উপযুক্ত পোশাক নাও হতে পারে।

মনে করেন আমেরিকার কেউ যদি বাংলাদেশে ভ্রমণে আসে তাদের দেশের ট্র্যাডিশনাল পোশাক পড়ে, তাহলে কি সেটা বাংলাদেশের জন্য উপযোগী পোশাক হবে?

বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে এই বিষয়টা অনেক বেশী জরুরি হয়ে পড়ে। তাই ভ্রমণের সময় আপনার পোশাকের প্রতি খেয়াল রাখুন।

যতটা সম্ভব স্থানীয় পোশাক গুলো পড়ার চেষ্টা করুন।

দামী জিনিসপত্র গোপন রাখুন

ভ্রমণে ব্যয়বহুল বা দামী জিনিসপত্র গোপন রাখুন। যদি আপনি এভারেজ বা নতুন ট্রাভেলার হন তাহলে, ভ্রমণের সময় দামী জিনিসপত্র সাথে না নেয়াই ভালো।

ভ্রমণের সময় আমরা যে জিনিসগুলো কমন নিয়ে থাকি যেমনঃ স্মার্টফোন, ক্যামেরা, কিন্ডল এবং ল্যাপটপ (বা ট্যাবলেট)। ইদানীং তো অনেকে ভ্রমণে ড্রোন নিয়ে যাচ্ছে।

আবার মহিলাদের ক্ষেত্রে স্বর্ণ অলংকার ইত্যাদি নিয়ে থাকে।

এগুলো অনেক দামী। তাই ভ্রমণে এগুলো যদি নিতেই হয়, এসব জিনিসের উপর এক্সট্রা নজর রাখুন।

কারন আপনার একটু অসতর্কতায় এগুলো হারাতে পারেন। ভ্রমণ করার সময়, সর্বদা আপনার মূল্যবান আইটেমগুলি আপনার সাথে নিরাপদ ব্যাগে রাখুন এবং যতটা সম্ভব এগুলোর প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখুন।

এমনকি যদি আপনি এগুলোর থেকে এক সেকেন্ডেরও জন্য চোখ ফিরিয়ে ফেলেন তবে এগুলো চিরকালের জন্য হারিয়ে ফেলবেন।

স্থানীয় ভাষার সাধারণ বাক্যাংশ গুলো শিখুন

ভ্রমণে যাওয়ার আগে, স্থানীয় ভাষায় কিছু শব্দ অনুশীলন করুন। মৌলিক শব্দ যেমনঃ
“hello”, “goodbye”, “no”, “please”, and “thank you”, ছাড়াও, আমি আপনাকে কিছু বাক্যাংশ শেখার পরামর্শ দিচ্ছি যা আপনি জানেন আপনার ভ্রমণে দরকারী হবে যেমনঃ “Where is the bus stop”, “Do you speak English”, and “I’m allergic to…”

প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো ব্যাকআপ রেখেছেন তো?

আমরা যেমন কোন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বা আমাদের তোলা কোন বিশেষ মুহূর্তের ছবি কয়েকজায়গায় কপি করে রেখে দেই, যাতে কোন কারনে হারিয়ে গেলে অন্য জায়গা থেকে সেগুলো সংগ্রহ করতে পারি।

ঠিক তেমনি ভ্রমণে গেলে আপনার পাসপোর্ট থেকে শুরু করে ড্রাইভার লাইসেন্স, বুকিং কনফার্মেশন, ভ্রমণ বীমা ইত্যাদি ফাইল গুলো কয়েক ভাবে ব্যাকআপ নিয়ে রাখা উচিত।

এই ডিজিটাল যুগে আমরা যদি এই ফাইল গুলো গুগল ড্রাইভ বা ফেবুকে অনলি মি (যাতে আপনি ছাড়া আর কেউ না দেখতে পায়) প্রাইভেসি করে রেখে দেই। তাহলে হার্ড কপি গুলো হারিয়ে গেলেও সফট কপি থেকে সেগুলো আবার সংগ্রহ করতে পারব।

নিজের উপর চেলেঞ্জ ছুড়ে দিবেন না

ভ্রমণে নিজের উপর চেলেঞ্জ ছুড়ে দেয়া ঠিক নয়। আপনি সমুদ্রের পাড়ে বা পাড়ের মাঝামাঝি থাকার চেষ্টা করুন।

অনেকে একটু একটু করে সমুদ্রের গভিরে যান। এটা ঠিক নয়। বলা যায় না, হঠাৎ বড় ঢেউ এসে আপনাকে সমুদ্রের আরও গভিরে নিয়ে যেতে পারে। অথবা, সমুদ্রে চোরাবালি থাকতে পারে।

একটু একটু করে এগিয়ে উচু পাহাড়ের কিনারায় যাওয়াও ঠিক নয়। ইতিমধ্যে এভাবে অনেকের মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে।

তাই সাবধান।

আরও পড়ুনঃ ট্রাভেল এন্ড ট্যুর ব্লগ নামকরণ নিয়ে মজার অভিজ্ঞতা

আপনার বুদ্ধি দিয়ে বিচার করুন

ভ্রমণে যে কোন কাজ করার আগে আপনার আপনার বুদ্ধি দিয়ে বিচার করুন। কোনটা কথা ঠিক বা কোনটা করা ঠিক নয় সেটা বুদ্ধি খাটিয়ে করার চেষ্টা করুন।

অনেকে দুঃসাহস দেখাতে যেয়ে অনেক উচু পাহাড়ের চূড়ায় উঠে বসেন। পড়ে নামতে গিয়ে কান্নাকাটি শুরু করে দেন। এটা ঠিক নয়।

মনে রাখবেন, ভ্রমণে এডভেঞ্চার থাকবে কিন্তু নিজের উপর এমন কোন চেলেঞ্জ ছুড়ে দিবেন না যা আপনার করা মোটেও ঠিক নয়।


আমার ফেসবুকঃ GoArif | টুইটারঃ GoArif

GoArif.com ওয়েবসাইটের কোথাও কোন ভুল বা অসংগতি আপনার দৃষ্টিগোচর হলে তা অনুগ্রহ করে আমাকে অবহিত করুন, যেন আমি দ্রুত সংশোধন করতে পারি।
আরিফ হোসেন

আমি একজন ভ্রমণ পিপাসু। ভ্রমণ করতে আমার খুবই ভালো লাগে। তাইতো সময় পেলে ভ্রমণে ছুটে যাই। কোন ভ্রমণই আমার শেষ হয়ে শেষ হয় না। বারংবার আমার সেই স্থানে ছুটে যেতে ইচ্ছে করে। কারন, আমি যে প্রকৃতি ভালবাসি।

সব পোস্ট দেখুন

মন্তব্য করুণ

১টি মন্তব্য