চিলেকোঠা - cilekotha - goArif

চিলেকোঠা – রূপনগর আবাসিক মিরপুর

প্রধান_পাতা » ঢাকা » চিলেকোঠা – রূপনগর আবাসিক মিরপুর

চিলেকোঠা রূপনগর আবাসিক মিরপুর। কতজন এর কত রকম ইচ্ছা ই না থাকে। অনেক ইচ্ছা পূরণ করা যায় আবার অনেক ইচ্ছা অপূর্ণ ই থেকে যায়। কুমিল্লায় জীবনের প্রথম মেসে উঠা হয়। তারপর কুমিল্লাতেই বেস কয়েকটা মেস চেঞ্জ করা হয়। এখন যে মেস নিয়ে কথা বলছি সেটি এক রিটায়ার্ড আর্মির বিন্ডিং ছিল। ৫তলা বাসার ৫ম তলাতে ছিল আমার মেস। মেস পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন মাসুদ ভাই। মাসুদ ভাই কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি তে পড়তেন। আমি পড়তাম সি সি এন পলিটেকনিক এ।

আমার রুম এর পাশের রুমে থাকতেন বাপ্পি ভাই। তিনি ও কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি তে পড়তেন। মেসে থাকার সুবাদে আমার সাথে বাপ্পি ভাই এর ভালো সম্পর্ক ছিল। আমরা প্রায়ই দেশের নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করতাম। বেশ কিছুদিন থাকার পর বাপ্পি ভাই আমাদের মেস ছেড়ে কাছেই নতুন এক বাসার চিলেকোঠায় উঠলেন। আমি প্রায়ই তার চিলেকোঠায় যেতাম।

বাপ্পি ভাই যে বাসার চিলেকোঠায় থাকতেন। সে বাসার ৩ তলায় মোফাজ্জেল থাকত। আমি আর মোফাজ্জেল বাপ্পি ভাই এর চিলেকোঠায় গিয়ে আড্ডা দিতাম। চিলেকোঠায় সাথে ই বিশাল এক ছাদ ছিল। বিকেলে সেখানে আমরা আড্ডা দিতাম। আমার খুব ভালো লাগতো।

বাপ্পি ভাই এর সেই চিলেকোঠা আমার খুব ভালো লাগত। সেখান থেকে ই আমার চিলেকোঠায় থাকার ইচ্ছা জাগা শুরু হল। কুমিল্লা তে আমি অনেক বাসা খুঁজেছি চিলেকোঠায় থাকার জন্য। কিন্তু পাই নি 🙁 । বাপ্পি ভাই এর সাথে ও উঠার ট্রাই করেছিলাম। কিন্তু আরেক বড় ভাই যিনি বাপ্পি ভাই কে চিলেকোঠায় তুলেছেন, তার জন্য আর ওই খানে উঠা হয় নি।

কুমিল্লা পড়ালেখা শেষ করে ঢাকায় এসে ইউনিভার্সিটি তে ভর্তি হলাম। থাকার জন্য উঠলাম ভার্সিটির কাছে ই একটা মেসের নিচ তলায়। প্রায় ১ বছর এর মত থাকলাম এখানে। তারপর বন্ধু রনির আমন্ত্রণে ভার্সিটি থেকে কিছুটা দূরে একটা মেসের ৫তলায় উঠলাম। সেখানে থাকলাম প্রায় ১ বছর এর উপরে।

ভার্সিটি ক্লাশ শেষে একদিন বাস্তা দিয়ে হেটে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ চোখ পড়ল দেয়ালে লাগানো একটা টু-লেট এর উপর। চিলেকোঠা ভাড়া হবে! আমি হাটা বন্ধ করে দাড়িয়ে গেলাম। টু-লেট এর কাছে গিয়ে লিখা গুলো ভালো করে পড়লাম। তাপর পকেট থেকে মোবাইলটা বের করে টু-লেট এ দেয়া নাম্বারে কল দিলাম। জিজ্ঞেস করলাম ভাড়া হয়েছে কিনা। আমাকে বলল, এখনো ভাড়া হয় নি।

আমি আর দেরি না করে ইউটার্ন নিয়ে টু-লেট বাসার ঠিকানায় হাটা শুরু করলাম। বাসাটা আমার ভার্সিটির খুব কাছে। ভার্সিটি তে উঠে প্রথমে যে মেসে থেকেছি, সেটা পাশেই এই বাসাটা।

আরও পড়ুনঃ দিয়াবাড়ি ভ্রমণ – উত্তরা, ঢাকা

এ বাসার ৩ টা ফ্লোর এর ৪র্থ, ৫ম এবং ৬ষ্ঠ তলায় ব্যাচেলর রা ভাড়া থাকে। এই তিনটি মেস এর দায়িত্বে আছেন রফিক ভাই। আমাদের ভার্সিটি তে ই আইন বিভাগে পড়েন। ওনার সাথে কথা বলে বাসা ঠিক করে ফেললাম।

খুব বেশি প্রয়োজন বাসার ছাদে উঠা নিষেধ। বাসার ছাদে আরো ২ টি ছোট ছাদ রয়েছে। একপাশে চিলেকোঠা। পুরু ছাদ জুরে রয়েছে ফল গাছ থেকে শুরু করে ফুল গাছ, ঐষুধী গাছ সহ নানা প্রজাতির গাছ।

jamrul - goArif
জামরুল গাছ

ফলের ভিতর রয়েছে কয়েক প্রজাতির আম গাছ, আমড়া গাছ, বড়ই গাছ, কামরাঙ্গা গাছ, পেয়ারা গাছ, জামরুল গাছ, ডালিম গাছ ইত্যাদি।

kamranga - goArif
কামরাঙ্গা গাছ

নানা প্রকারের ফুলের গাছ ও রয়েছে। রয়েছে ভিবিন্ন প্রজাতির কাঠ গাছ। মেহেদি গাছ সহ আরো অনেক।

dalim-goarif
ডালিম গাছ

ছদের উপরে আরো ২ টি ছাদ পাশা পাশি রয়েছে। উপরের ছাদে উঠার জন্য রয়েছে সিঁড়ি।

lebo - goArif
লেবু গাছ

সিঁড়ি বেয়ে ছাদে উঠে চারদিক তাকালে এক অপরূপ দৃশ্য দেখা যায়। আর আপনাকে উড়িয়ে দেয়ার জন্য বাতাস তো রয়েছে ই।

flower - goArif
ফুল গাছ

আমার রুম এর জানালা পাশেই গাছ রয়েছে।

janalar pase - goArif
জানালার পাশে গাছ

রুম থেকে জানালা দিয়ে তাকালে মনে হয়, আমি আমার গ্রামে আছি। এখানে যত গুলো ফলের গাছ রয়েছে, সবগুলো কলমের। এগুলো বছরে ২ থেকে ৩ বার ফল দেয়।

Mango tree - goArif
আম গাছ

ফুলের গাছে সুন্দর ভাবে ফুল ফুটে। বাসার কেয়ারটেকার প্রতিদিন বিকেলে এসে গাছে পানি দিয়ে যায়। আমি ও মাঝে মাঝে তাকে হেল্প করি। গাছে পানি দিতে কার না ভালো লাগে বলেন। 🙂

আরও পড়ুনঃ সুন্দরবন এবং বাগের হাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ ট্যুর


আমার ফেসবুকঃ GoArif

GoArif.com ওয়েবসাইটের কোথাও কোন ভুল বা অসংগতি আপনার দৃষ্টিগোচর হলে তা অনুগ্রহ করে আমাকে অবহিত করুন, যেন আমি দ্রুত সংশোধন করতে পারি।
আরিফ হোসেন

আমি একজন ভ্রমণ পিপাসু। ভ্রমণ করতে আমার খুবই ভালো লাগে। তাইতো সময় পেলে ভ্রমণে ছুটে যাই। কোন ভ্রমণই আমার শেষ হয়ে শেষ হয় না। বারংবার আমার সেই স্থানে ছুটে যেতে ইচ্ছে করে। কারন, আমি যে প্রকৃতি ভালবাসি।

সব পোস্ট দেখুন

3
মন্তব্য

avatar
2 মন্তব্য
1 উত্তর
0 ফলোয়ার
 
সর্বাধিক প্রতিক্রিয়া মন্তব্য
হটেস্ট মন্তব্য
  সাবস্ক্রাইব  
নতুন পুরনো সেরা ভোট
নোটিফিকেশন পান
পলাশ
অতিথি
পলাশ

চিলেকোঠায় থাকার মাজাই আলাদা।

নাম নাই
অতিথি
নাম নাই

আমারও চিলেকোঠায় থাকার খুব ইচ্ছা।